আসামি ধরতে যাওয়ায় ডাকাত আখ্যায় গ্রামবাসী পেটালো পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, নারায়ণগঞ্জঃ ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি ধরতে গিয়ে ডাকাত আখ্যা দিয়ে পুলিশকে পেটানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

শুক্রবার (১৪ নভেম্বর) রাত ১২টা ১০ মিনিটে নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৩০-৪০ জনের বিরুদ্ধে বাদী হয়ে পুলিশ মামলা দায়ের করেছে। এরপর পুলিশ আমিনুল ইসলাম (৫৫), মারুফ খান (১৮), সামছুজ্জামান (২৮) ও ওয়াসিম (২৯) নামে চারজনকে গ্রেফতার করে।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শরীফ বলেন, রাত ১২টার দিকে ওয়ারেন্ট আসামি ধরতে জালকুড়ি পশ্চিমপাড়া এলাকায় গেলে সেখানে পোশাকধারী ডিউটিরত পুলিশ সদস্যদের ডাকাত আখ্যা দিয়ে মারধর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। রাতেই চারজনকে গ্রেফতার করা হয়।

এ বিষয়ে মামলার বাদী এএসআই নুরুজ্জামান বাদী হয়ে মামলায় উল্লেখ করেন, ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি মো. বিল্লাল হোসেন সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুড়ি পশ্চিমপাড়া আমিনুল ইসলামের বাড়িতে অবস্থান করছে- এমন খবরে তিনি রাত ১২টা ১০ মিনিটে স্থানীয় নাইটগার্ড নাসিরকে (৪০) সঙ্গে নিয়ে ওই বাড়িতে যান। পরবর্তীতে ওই বাড়ির মালিক আমিনুল ইসলামকে ডেকে জিজ্ঞেস করেন আসামি তার বাড়িতে অবস্থান করছে কিনা। জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তারা বাড়ির দরজা না খুলে ভেতর থেকে পুলিশকে উদ্দেশ্য করে বিভিন্ন ধরনের অশালীন ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ কথাবার্তা বলতে থাকেন।

এ সময় এএসআই নুরুজ্জামান অন্য পুলিশ সদস্যসহ আসামি যে রুমের ভেতরে অবস্থান করছে সেই রুমে যাওয়ার পর বাড়ির মালিক আমিনুল স্থানীয় মসজিদে ফোন করে বলেন যে, বাড়িতে ডাকাত এসেছে, মসজিদে মাইকিং করতে হবে। তার কথার ভিত্তিতে মসজিদে মাইকিং করার পর উল্লেখিত ১৩ আসামি ছাড়াও ৩০-৪০ জন লোক এসে তাদের পরিহিত পোশাক ধরে টানাহেঁচড়া করে। মামলায় তিনি আরও উল্লেখ করেন, তাদের লাঠি দিয়ে বেধড়ক পিটিয়ে জখম করা হয়।

পরবর্তীতে এ বাড়িতে আসামি ধরতে এলে তাদের খুন করার হুমকি দেয়া হয়। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করলে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হামলার শিকার পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে। 

রাজনীতি/কাসেম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here