কাতারে খুনের আসামি ৬ বছর পর বাংলাদেশে গ্রেপ্তার

ছবি সংগৃহীত

নিজস্ব প্রতিবেদক: কাতারের রাজধানী দোহায় ২০১৪ সালের ৯ জানুয়ারি এক বাংলাদেশিকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করে পালিয়ে চলে আসেন এক বাংলাদেশি। সেই মামলায় কাতারের আদালতে ২০১৬ সালের মার্চে তাকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়েছে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সেই পলাতক আসামি দীর্ঘ ছয় বছর পালিয়ে বেরিয়েছেন বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলায়। অবশেষে তাকে গ্রেপ্তার করেছে সিআইডি।  আজ সোমবার সিআইডির সিনিয়র এএসপি (মিডিয়া) জিসানুল হক জিসান এসব কথা জানিয়েছেন ।

তিনি জানান, পলাতক সেই মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামির নাম রাশেদুল হক ওরফে রশিদুল ইসলাম (৩০)। ঢাকা জেলা সিআইডি অভিযান চালিয়ে ডেমরা এলাকা থেকে গত ৭ নভেম্বর রাতে রাশেদুলকে গ্রেপ্তার করেছে।

তিনি আরও জানান, রাশেদুল কাতারের রাজধানী দোহায় চাকরি করাকালীন ২০১৪ সালের ৯ জানুয়ারি আব্দুর রাজ্জাক নামে এক প্রবাসীকে হাতুড়ি দিয়ে মাথার পেছনে আঘাত করে হত্যা করেন। এর পরদিন অর্থাৎ ১০ জানুয়ারি বাংলাদেশে চলে আসেন।

এ ঘটনায় কাতারে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়। পরবর্তীতে সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে কাতারের আদালত আসামিকে প্রস্তরাঘাতে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ প্রদান করেন।

সিআইডি জানায়, কাতারে আত্মসমর্পণ না করে বাংলাদেশে আসা রাশেদুল নিহত রাজ্জাকের বাবাকে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করছিলেন। এ ঘটনায় রাজ্জাকের বাবা দোহার থানাতে একটি মামলা দায়ের করেন।

সিআইডি আরও জানায়, আব্দুর রাজ্জাক হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মোট চারজন প্রবাসী বাংলাদেশি ও তাদের সহযোগী একজন নেপালি নাগরিকের ফাঁসির আদেশ দিয়েছিল কাতারের আদালত।

রাজনীতি/কাসেম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here