কারাগারে বাড়তি নিরাপত্তা ‘উড়ো চিঠিতে নয়’: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

নিজস্ব প্রতিবেদক: কারাগারের নিরাপত্তা জোরদার উড়ো চিঠি বা ফোন কলের জেরে নয় বলে দাবি করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

কাশিমপুর কারাগারে থেকে যাবজ্জীবন সাজা পাওয়া কয়েদির পালানোর ঘটনায় তদন্ত কমিটির সুপারিশেই এ পদক্ষেপ বলে দাবি মন্ত্রীর। যদিও গেল রবিবার পাঠানো কারা অধিদফতরের চিঠিতে বন্দি ছিনিয়ে নেয়ার হুমকির কথা বলে নিরাপত্তা বাড়ানোর নির্দেশ দেয়া হয়।

মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী (মুজিববর্ষ ২০২০) উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত এক কোটি বৃক্ষের চারা রোপনের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘একটি কারাগারে যে উড়ো চিঠি এসেছে, সেটা যাচাইয়ের জন্য গোয়েন্দা সংস্থার কাছে পাঠানো হয়েছে। কারারক্ষীদের দুর্বলতার কারণে একজন আসামি সম্প্রতি পালিয়ে গেছে। এমন প্রেক্ষাপটে দেশের কারাগারগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।’

লালমনিরহাট কারাগারে একটি ‘উড়ো চিঠি’ এসেছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ওই কারাগারে এমন চিঠি সব সময়ই আসে। তারপরও চিঠিটি যাচাইয়ের জন্য গোয়েন্দাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।’

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীতে এক কোটি বৃক্ষের চারা রোপনের উপর জোর দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যে স্বপ্ন সারা বাংলাদেশকে ক্ষুধা দারিদ্র্য মুক্ত করা, সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। এই করোনার পরিস্থিতিতে দেশকে বাঁচাতে হলে কৃষিকে গুরুত্ব দিতে হবে। তারই ধারাবাহিকতায় বৃক্ষরোপন কর্মসূচি চলছে। আজকে জাতীয় সংসদ ভবন চত্বরেও একই বৃক্ষরোপন কর্মসূচী চলছে। এই করোনা পরিস্থিতি সফলভাবে মোকাবিলা করতে হলে কৃষির উপর গুরুত্বারোপ অব্যাহত রাখতে হবে।’

বৃক্ষরোপন কর্মসূচিতে আরও অংশগ্রহণ করেন- জাতীয় সংসদের সদস্য সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী।

তিনি বলেন, ‘বৃক্ষরোপন কর্মসূচি সারা বাংলাদেশে চালিয়ে যাওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করতে হবে। যা নতুন প্রজন্মকে এ কাজে উৎসাহিত করবে।’

রাজনীতি/কাসেম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here