দৌলতপুরে প্রবাসীদের সম্পত্তি নিয়ে বিরোধের স্থায়ী সমাধান

বিশ্বনাথ (সিলেট) প্রতিনিধি: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়নের দৌলতপুর গ্রামের প্রবাসীর সম্পত্তি নিয়ে দীর্ঘদিনের দ্বন্ধের স্থায়ী সমাধান হয়েছে। মঙ্গলবার (১৪জুলাই) সকালে থানা কম্পাউন্ডে দু’পক্ষের উপস্থিতিতে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও থানা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে এ সমস্যার সমাধান হয়। পরে উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে দুইপক্ষকে মিষ্টিমুখ করানো হয়।


জানা গেছে, দৌলতপুর গ্রামের যুক্তরাজ্য প্রবাসী শাহেদ খান গং ও একই গ্রামের তোরণ খান গংদের মধ্যে দৌলতপুর মৌজার খতিয়ান নং ৭৮১ (বিএস), ৬৯৭১ দাগের ১৬ ডিসিমেল জায়গার উপর নির্মিত টিন সেটের একটি আধাপাকা ঘর নিয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিলো। এ নিয়ে প্রবাসী শাহেদ খানের ভাই কয়েছ খান মামলাও দায়ের করেন। মঙ্গলবার সকালে দু’পক্ষ ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব পংকি খান, সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমদের উপস্থিতিতে আপোষের মাধ্যমে থানার অফিসার্স ইনচার্জ মো. শামীম মূসা বিরোধকৃত এ ভূমি ও ঘরের মালিকানা কয়েছ খান গংদের কাছে সমঝিয়ে দেন।


থানা কম্পাউন্ডের বৈঠকে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সম্পাদক মকদ্দছ আলী, সালিশ ব্যাক্তিত্ব আবুল কালাম, সমাজসেবক আশরাফুল ইসলাম খান সোহেল, কৃষকলীগ নেতা শাহজাহান সিরাজ, প্রবীণ মুরব্বী গয়াছ খান, আলমগীর হোসেন, তজম্মুল খান, মতিন খান, আনোয়ার খান, আনহার খান, রোয়েল মিয়া কালু, আব্দুল হামিদ রুমেল, রাহিম খান, মনির আলীসহ দৌলতপুর এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গরাও উপস্থিত ছিলেন।


এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব পংকি খান বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এই দৌলতপুরে প্রবাসীর বাড়ি ও বাড়ির জায়গার মালিকানা নিয়ে নিয়ে বিরোধ চলছিল। আজ থানা পুলিশের মধ্যস্থাতায় এ বিরোধ নিষ্পত্তি হয়েছে।


এ ব্যাপারে বিশ্বনাথ থানার ওসি শামীম মুসা বলেন, ঘরের মালিকানা নিয়ে বিরোধের জেরে তোরণ খান পক্ষ তালা দিয়ে প্রবাসী শাহেদ খানের বসত ঘরসহ দু’টি ঘর দখল দখল করেন। শাহেদ খানের ভাই কয়েছ খান থানায় অভিযোগ করলে থানা পুলিশ তালার চাবি উদ্ধার করে উভয়পক্ষের নিকটাত্মীয় একজনের কাছে দেওয়া হয়। মঙ্গলবার জায়গার দলিলপত্র দেখে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি-সম্পাদক ও উভয়পক্ষের লোকজনের উপস্থিতিতে ঘরের প্রকৃত মালিক শাহেদ খানের ভাই কয়েছ খানের হাতে ঘরের চাবি তুলে দেওয়া হয়েছে।

রাজনীতি/কাসেম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here