নরসিংদী সদরের এমপির বিরুদ্ধে মামলা, তদন্তের নির্দেশ

নরসিংদী-১ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাবেক পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম (বীর প্রতিক) ।

নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদী শহরে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে নরসিংদী-১ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং সাবেক পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম (বীর প্রতিক) সহ দুইজনকে আসামী করে মামলা একটি দায়ের করা হয়েছে।

গত বুধবার (২৬ আগষ্ট) বিকেলে নরসিংদী আদালতের মুখ্য বিচারিক হাকিম মো. রকিবুল
ইসলামের আদালতে শহরের ভেলানগর মহল্লার ইউসুফ আলীর ছেলে মোহাম্মদ মোস্তাক আহাম্মদ
বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে আগামী ১২ অক্টোবরের মধ্যে
নরসিংদী সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য
আদেশ দিয়েছেন। মামলা নম্বর ৪৯০। এই মামলার অপর আসামী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক
শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এসএম কাইয়ুম।


আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে নরসিংদী শহর আওয়ামী
লীগের উদ্যোগে নরসিংদী জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে এক গণভোজ ও দোয়া
মাহফিলের আয়োজন করা হয়। গণভোজ উপলক্ষে ১৪ আগস্ট রাতে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের চারতলার ভবনের নিচতলার সামনে তিনটি গরু ও দুটি খাসি জবাই করা হয়। গণভোজে মামলার বাদিসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ছাড়াও সকল ধর্ম ও বর্ণের নেতাকর্মীসহ সাধারণ
লোকজন অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে অংশ নেয়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৯ আগস্ট
দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের হিন্দু অধ্যুষিত বীরপুর সিএনজি স্ট্যান্ডে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম। তিনি হিন্দু ধর্মের লোকজনকে উদ্দেশ্য করে উস্কানিমূলক মিথ্যা ও বিভ্রান্তিমূলক বক্তব্য দিয়ে এলাকার সাম্প্রদায়িক সম্প্রতি নষ্ট করার জন্য ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে হিন্দু মুসলিম দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা করেছেন।

সংসদ সদস্য তার বক্তব্যে বলেছেন, ‘নরসিংদী শহর আওয়ামী লীগ ও অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের
আয়োজিত ১৫ আগস্টের শোক দিবসের গণভোজের জন্য নরসিংদীর হাজার হাজার বছরের ঐতিহ্য
ভঙ্গ করে হিন্দু মন্দিরের দরজার কাছেই গরু জবাই করে। যেটা হিন্দু ধর্মের যারা আছেন, তারা
অত্যন্ত গর্হিতকর অন্যায় বলে মনে করেন।


মামলার বাদি মোহাম্মদ মোস্তাক আহাম্মদ বলেন, আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত নেতা এসএম কাইয়ুমের প্ররোচনায় ও পরামর্শে সংসদ সদস্য মিথ্যা তথ্য দিয়ে যে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক বক্তব্য দিয়েছেন, তাতে আমাদের নরসিংদীর শত বছরের হিন্দু মুসলিম সম্প্রতি নষ্ট হতে পারে। এক ধর্মের লোকজনের প্রতি অন্য ধর্মের লোকজনের ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে।


একজন সচেতন দায়িত্বশীল লোক হয়ে তিনি এ ধরনের বক্তব্য দিতে পারেন না। যা আওয়ামী লীগের
অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার প্রতিবন্ধকতা তৈরি করেছে।


বাদি পক্ষের আইনজীবী ওবায়দুল হক জুয়েল বলেন, আমাদের মামলাটি আদালত আমলে নিয়ে
নরসিংদী মডেল থানার ওসিকে আগামী ১২ অক্টোবরের মধ্যে তদন্তপূর্বক প্রতিবেদন দাখিল করার
নির্দেশ দিয়েছেন।

রাজনীতি/কাসেম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here