প্রেমিকের টানে সুনামগঞ্জে ভারতীয় তরুণী

ভারতীয় তরুনী মঞ্জুরা বেগম (২০) ।

নিজস্ব প্রতিবেদক, সুনামগঞ্জ: বাহরাইনে থাকা প্রেমিকের টানে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে আসেন ভারতের তরুণী। গিয়ে ওঠেন প্রেমিক আব্দুস সাত্তারের (২৭) বাড়িতে। এরপর তার সম্মতিতে মোবাইল ফোনেই বিয়ে করেন বাহরাইনে থাকা আব্দুস সাত্তারকে। কিন্তু বিজিবি জানার পরই ঘটে বিপত্তি।

বুধবার রাতে বিজিবি অবৈধ অনুপ্রবেশের অপরাধে ওই তরুণীকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

ঘটনাটি ঘটেছে সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলার কলাউরা গ্রামে।

ওই তরুণীর নাম মঞ্জুরা বেগম (২০)। তিনি ভারতের আসাম প্রদেশের কামরুক জেলার চাংসারি থানার টাপার পাথার গ্রামের মুগুর আলির মেয়ে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার বাংলাবাজার ইউনিয়নের উত্তর কলাউড়া গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে আব্দুস সাত্তার ৫ বছর আগে একটি মামলায় আসামি হলে পালিয়ে যান ভারতের আসামে। সেখানেই তার পরিচয় হয় মঞ্জুরা বেগমের সঙ্গে। তাদের মধ্যে গড়ে উঠে ভালোবাসার সম্পর্ক। বছরখানেক পরে সাত্তার চলে আসেন বাংলাদেশে। দেশে আসার পর তিনি আবারও বাহরাইন চলে যান। দীর্ঘদিন ধরে তাদের মধ্যে মোবাইলের মধ্যমে প্রেমের সম্পর্ক চলতে থাকে।

গত মঙ্গলবার বাহরাইন থেকে ওই তরুণীকে ঠিকানা দিয়ে বাংলাদেশ চলে আসতে বললে সকাল ৯টার দিকে বাংলাদেশে চলে আসেন ওই ভারতীয় তরুণী। সাত্তারের ছোট ভাই ইমরান দোয়ারাবাজার সীমান্ত থেকে তরুণীকে বাড়ি নিয়ে আসেন। পরে মঞ্জুরা বেগমের সম্মতিক্রমে মোবাইলের মাধ্যমে বাহরাইনে অবস্থানরত সাত্তারের সঙ্গে বিবাহ অনুষ্ঠিত হয়।

বুধবার বিকেলে বিজিবি খবর পেয়ে পাসপোর্ট ছাড়া অনুপ্রবেশের অপরাধে আটক করে মঞ্জুরা বেগমকে। বিজিবি মঞ্জুরার নামে বিনা পাসপোর্ট ও অনুমতি ছাড়া দেশে প্রবেশ করার কারণে দোয়ারাবাজার থানায় একটি মামলা দায়ের করে রাতেই থানায় সোপর্দ করে।

দোয়ারাবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ নাজির আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, বিজিবি ভারতীয় এ তরুণীকে অবৈধ অনুপ্রবেশের দায়ে আটক করে একটি মামলা দায়ের করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে নেয়া হবে।

রাজনীতি/তারেক

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here