মনোনয়নের দৌড়ে এগিয়ে হারুনর রশীদ মুন্না

নিজস্ব প্রতিবেদক: আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্যের মৃত্যুর কারণে বর্তমানে দেশের পাঁচটি সংসদীয় আসন শূন্য রয়েছে। এদের মধ্যে পাবনা-৪ আসনের তফসিল রবিবার (২৩ আগস্ট) ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর এ আসনের উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

শূন্য হওয়া ঢাকা-৫ এবং নওগাঁর-৬ আসনে নির্বাচন হবে ১৭ অক্টোবর। তবে ঢাকা- ১৮ এবং সিরাজগঞ্জ-১ আসনের নির্বাচনের বিষয়ে নির্বাচন কমিশন কোনও সিদ্ধান্ত এখনও নেয়নি। তবে আসন্ন উপনির্বাচনে কে পাচ্ছেন নৌকার মনোনয়ন তা নিয়ে নানা হিসাব কষছেন আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকরা। এক্ষেত্রে এসব আসনে আগের মনোনয়ন পাওয়া নেতাদের পরিবারের এক বা একাধিক ব্যক্তির নাম উঠে এসেছে।

আগামী সপ্তাহে আওয়ামী লীগের সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের সভায় পাঁচ আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ইতিমধ্যে ঢাকা-৫ আসনে মনোনয়নের জন্য আবেদনপত্র ক্রয় করেছে ২০ জন প্রার্থী ।

এদিকে ঢাকা-৫ আসনের এমপি হাবিবুর রহমান মোল্লার মৃত্যুর পর এই আসনে মনোনয়ন পেতে পারেন হারুনর রশীদ মুন্না। তিনি বৃহত্তর ডেমরা থানা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক, ডেমরা থানা বর্তমান যাত্রাবাড়ী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং ঢাকা-৫ নির্বাচনী এলাকার ১৪দলের প্রধান সমন্বয়ক। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মনোনয়নপ্রত্যাশী অন্য অনেক নেতার চেয়ে এ আসনে দক্ষ-যোগ্য হিসেবে এগিয়ে আছেন হারুনর রশীদ মুন্না। এলাকাবাসীর সঙ্গে কথা বলেও জানা গেছে তার এগিয়ে থাকার কথা।

তৃনমূলের নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, অন্যায় অত্যাচার অবিচারের বিরুদ্ধে আপোষহীন নেতা হারুনর রশীদ মুন্না। ৯০ দশক থেকে ২০২০ সাল পর্যন্তু চলমান রাজনীতিতে সক্রিয় তিনি। ৮৪টি মামলা, ৪৯দিন রিমান্ড এবং ৯ মাস কারা ভোগ করে করেও আপোষ করেনি রাজনীতি নিয়ে। ঢাকা-৫ আসনে হারুনর রশীদ মুন্না ব্যতীত কাউকে দেখছে না তৃনমূলের নেতাকর্মীরা।

উল্লেখ্য, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৪৮, ৪৯, ৫০ এবং ৬০-৭০ মোট ১৪টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত এ আসনের প্রবীণ সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা গত ৬ মে স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করলে আসনটি শূন্য হয়।

রাজনীতি/কাজল

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here