মামুনুলসহ ৬০০ জনকে আসামি করে তিন মামলা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি প্রকাশিত : ৭ এপ্রিল ২০২১

পুলিশের উপর হামলা ও ভাঙচুরের অভিযোগে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হককে প্রধান কিরে ৮৩ জনের নাম উল্লেখ এবং ৫০০ থেকে ৬০০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে তিনটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) রাতে সোনারগাঁ থানায় পুলিশ বাদি হয়ে দুটি ও একজন সাংবাদিক বাদি হয়ে একটি মামলা করেন। নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সোনারগাঁও থানার ওসি (তদন্ত) মো. তবিদুর রহমান জানান, পুলিশের উপর হামলা ও পুলিশের গাড়ি, রয়েল রিসোর্ট, আওয়ামী লীগের কার্যালয়, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতার কর্মীর বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুরের ঘটনায় তিনটি মামলা করা হয়েছে। মামুনুল হককে প্রধান আসামি করে ৪১ জনের নাম উল্লেখ এবং ২৫০-৩০০জনকে অজ্ঞাত আসামী করে মামলা করা হয়। অন্যদিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় এসআই আরিফ হাওলাদার বাদি হয়ে একটি মামলা করেন এবং এস টেলিভিশনের হাবিবুর রহমানের উপর হামলার ঘটনায় তিনি নিজেই বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেন।

তিনি আরও জানান, গত ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ে দিঘীরপার এলাকায় অবস্থিত রয়েল রিসোর্টে এক নারীকে নিয়ে উঠেন হেফাজতে ইসলামের ঢাকা মহানগরের সাধারণ সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মামুনুল হক। খবর পেয়ে রিসোর্টে নারীসহ মামুনুল হককে অবরুদ্ধ করে রাখেন যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এসময় মামুনুল হক দাবি করেন ওই নারী তার দ্বিতীয় স্ত্রী। খবর পেয়ে সোনারগাঁও থানার পুলিশ ঘনটাস্থলে গিয়ে মামুনুল হককে উদ্ধার করে। এ সময় রয়েল রিসোর্টে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতে নারীসহ আটককৃত মাওলানা মামুনুল হককে করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে লাইভ করেন স্থানীয় কয়েকজন গণমাধ্যম কর্মী। এ ঘটনার পর সোনারগাঁওয়ের জামায়ত, শিবির, বিএনপি ও হেফাজতের নেতাকর্মীরা জড়ো হয়ে রিসোর্টে ভাঙচুর করে হেফাজত নেতাকে ছাড়িয়ে নেয়। পরে হেফাজতের নেতাকর্মীরা মোগরাপাড়া চৌরস্তা এলাকায় অবস্থিত আওয়ামী লীগের কার্যালয়, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতার কর্মীর বাড়ি ঘরে হামলা ভাঙচুর চালায়।

রাজনীতি/তারেক

আপনার মতামত লিখুন :