ময়নাতদন্ত ছাড়াই হস্তান্তর করা হবে লাশ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পশ্চিমতল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়াই পরিবারের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তবে এক্ষেত্রে আবেদন করতে হবে। যদি নিহতের পরিবারের কারও আপত্তি থাকে সে ক্ষেত্রে মরদেহের ময়নাতদন্ত করা হবে।

আজ শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) বেলা পৌনে ১২টার দিকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি আহত ও নিহতদের ব্যক্তিদের দেখতে এসে এসব কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. জায়েদুল আলম।

তিনি বলেন, এসি বিস্ফোরণে দগ্ধ হয়ে নিহত ব্যক্তিদের মরদেহ তাদের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হবে। নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন ও পুলিশ মিলে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করবে। ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার যেভাবে চাইবে আমরা সেভাবেই মরদেহ হস্তান্তর করব। নিহতদের মরদেহ শাহবাগ থানা পুলিশের মাধ্যমে হস্তান্তর করা হবে।

এসপি জায়েদুল আলম বলেন, আমরা ঘটনাস্থল (মসজিদ) পরিদর্শন করেছি। প্রাথমিকভাবে পরীলক্ষিত হয় সেখানে এসি বিস্ফোরণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে। মসজিদের মোট ছয়টি এসি ছিল। সব এসিই বিস্ফোরণ হয়। এতে মসজিদের সবগুলো জানালার কাচ ভেঙে যায়। আগুনে মসজিদের সিলিং ফ্যানগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘটনাস্থলে মানুষের রক্ত মাংস ও চামড়া লেগে থাকতে দেখা গেছে।তিনি জানান, আহত ও নিহত ব্যক্তির স্বজনদের সহায়তার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে হাসপাতালে একটি হেল্প ডেস্ক খোলা হয়েছে। আমরা শুক্রবার রাত থেকেই তাদের সহায়তা দিচ্ছি। এ ঘটনায় শনিবার দুপুর পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। যারা আহত হয়েছেন, তাদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক বলেও জানান তিনি।এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় ৩০৪ ধারায় একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানান এসপি জায়েদুল।

এসি বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃত ১৪ জন হলেন- ইব্রাহিম (৪২), দেলোয়ার হোসেন (৪২), মোস্তফা কামাল (৩৫) সাব্বির (২১), জুয়েল (৭) জুবায়ের (১৮), হুমায়ূন কবির (৭০), জুনায়েদ (১৭), রিফাত (১৮) কুদ্দুস ব্যাপারী (৭০), জামাল (৪০), মো. রাশেদ (৩৪), জয়নাল আবেদীন (৪০) ও মঈনুদ্দীন।এর আগে শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাত পৌনে ৯টায় নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পশ্চিমতল্লা এলাকার বাইতুস সালাত জামে মসজিদে এসি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।এ বিস্ফোরণের ঘটনায় ৩টি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

রাজনীতি/কাসেম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here