বিচার চাইতে এসে কেরানীগঞ্জে ধর্ষনের শিকার নারী, ধর্ষক গ্রেপ্তার

প্রকাশিত : ১০ জুলাই ২০২০

Dear Jehovah God who receives in the most probiotics after antibiotics for.heart burn vulnerable place, progress my husband from the house of safflower and ankle from mild onwards I default in Jesus Name. However, it is concern that eradication of the allergy will require elimination of these agents.

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজনীতিঃ ঢাকার কেরানীগঞ্জে ধর্ষনের অভিযোগে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটলিয়ন র‌্যাব ১০ এর সিপিসি ২ টিম। ১০ জুলাই ভোরে কেরানীগঞ্জের আগানগর ইউনিয়নের নাগরমহল রোড চেয়ারম্যান মার্কেট নিচতলা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করে হয়াছে।

র‌্যাব ১০ সিপিসি ২ এর ডিএডি বদিউল আলম জানান, ধর্ষিতা নারী সুনির্দিষ্ট তথ্য প্রমানসহ র‌্যাব অফিসে অভিযোগ করলে অভিযোগের ভিত্তিতে কেরানীগঞ্জ ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানী কমান্ডার এ এস পি মোঃ আবুল কালাম আজাদ এর নেতৃত্বে নাগর মহল রোডের চেয়ারম্যান রোডের নিচ তলায় ইব্রাহিমের ইন্টারনেট অফিসে অভিযান পরিচালনা করে ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হচ্ছেন ধষর্ণকারী ১। মোঃ তাইজুল ইসলাম (বাপ্পি) (২৩),পিতা- মোঃ শফিকুল ইসলাম, ও তার সহযোগী ২। মোঃ ইব্রাহিম (২৮), পিতা- মৃত ইসমাইল সরকার, ৩। মোঃ একরাম (১৮), পিতা- মোঃ শাহীন মিয়া।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন এলাকাবাসী জানান, যে অফিসে মেয়েটিকে ধর্ষন করা হয় সেটি একটি রাজনৈতিক ক্লাব ছিলো। ক্লাবের বখাটে কিশোরা কয়েকদিন পর পর ই ছিনতাইসহ নানা রকমের অপকর্মে লিপ্ত থাকতো।

রাজনৈতিক ছত্র ছায়া থাকায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলার সাহস পেতো না। গত কয়েকদিন আগে ধর্ষিতা নারী তার পারিবারিক এক বিচার নিয়ে আসে মো: ইব্রাহিমের কাছে। ইব্রাহিম তার পারিবারিক বিষয়টি বিচার করে দেয়। বিচারের পরে মেয়েটি বাসায় চলে যায়। এর কিছুক্ষন পরে আবার মেয়েটিকে অফিসে ডেকে নিয়ে ধর্ষন করা হয়।

এ ঘটনায় মেয়েটি মেডিক্যাল টেষ্ট ও ধর্ষনের প্রমানসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কাছে অভিযোগ দেয়। অভিযোগের প্রেক্ষিতে র‌্যাব অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে দক্ষিন কেরানীগঞ্জ থানায় একটি ধর্ষন মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় র‌্যাব।

রাজনীতি/কাসেম

আপনার মতামত লিখুন :